লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য
১. ইসলামী শ্রমনীতি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শ্রমজীবি মানুষের অধিকার নিশ্চিত করা।
২. আল্লাহর দেওয়া বিধান অনুযায়ী মুহাম্মদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নির্দেশিত পথে ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা কায়েম করা।
৩. শ্রমিক সাধারনের মানবিক, সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সংরক্ষণ করা এবং সাংস্কৃতিক ও নৈতিক উন্নতি সাধন করা।
৪. শ্রমিকদের মধ্যে ইসলামের প্রতি অবিচল বিশ্বাস, পারস্পরিক ঐক্য, শৃঙ্গখলা, ভ্রাতৃত্ব, সহযোগিতা ও ন্যায়ের প্রতিষ্ঠা এবং অন্যায়ের প্রতিরোধের মনোভাব সৃষ্টি করা।
৫. শ্রমিকদের চাকুরীর অধিকার, মর্যাদা স্বার্থ ও নিরাপত্তা রক্ষা করা।
৬. শ্রমিক সাধারণের জন্য আইনের সহযোগিতা সহজ লভ্য করা।
৭. আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সুপারিশ ও কনভেনশন প্রয়োগ করার চেষ্টা করা।
৮. অনুমোদিত ইউনিয়ন সমূহের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি করা।
৯. শ্রমিকদের মধ্যে সমাজ, রাষ্ট্র ও শিল্প প্রতিষ্ঠানের প্রতি দায়িত্ববোধ সৃষ্টি ও উৎপাদন বৃদ্ধির মনোভাব জাগ্রত করা।
১০. মত প্রকাশের স্বাধীনতা, ধর্মীয় স্বাধীনতা, অর্থনৈতিক স্বাধীনতা, সংগঠন ও সমাবেশ করার অধিকার প্রতিষ্ঠা করা।
১১. অন্তর্ভূক্ত ইউনিয়নগুলির ধর্মঘট করার আইনানুগ অধিকার প্রতিষ্ঠা করা।
১২. পেশা উপযোগী ও নৈতিকতা সম্পন্ন শিক্ষা এবং প্রশিক্ষনের মাধ্যমে শ্রমিকদের পেশাগত যোগ্যতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি করা।
১৩. ন্যূনতম মৌলিক চাহিদার ভিত্তিতে শ্রমিকদের মজুরী নির্ধারণ ও দৈনন্দিন জীবনের মান উন্নয়নের চেষ্টা করা এবং প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশ প্রদানের আইন বাস্তবায়নের চেষ্টা করা।